চীনের তথ্য গোপন করার মাশুলই গুণছে বিশ্ব: মার্কিন গোয়েন্দা প্রতিবেদন

নিউজনাউ ডেস্ক: 

শুরুর সময়ে করোনা সংক্রমণের বিষয়টি বেশ কয়েক সপ্তাহ চীনের সরকারি কর্তাদের থেকে গোপন রেখেছিল উহানের স্থানীয় প্রশাসন। আর এটিই বুমেরাং হয়ে দাঁড়িয়ে বুলেটগতিতে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে মহামারী আকার ধারন করেছে।যার মাশুল গুণছে আজ গোটা বিশ্ব। এমনটাই মনে করছে মার্কিন গোয়েন্দা বিভাগ।

মার্কিন গোয়েন্দাদের প্রতিবেদন অনুযায়ী, শুধু স্থানীয় প্রশাসনের গাফিলতিই নয়, দায় রয়েছে চীনা কমিউনিস্ট পার্টিরও। তারা সরাসরি বলছেন, সংক্রমণের খবর পেয়ে বিষয়টি প্রকাশ্যে আনতে কোনও ব্যবস্থাই নেয়নি চীনা কমিউনিস্ট পার্টি। তারা উদাহরণ টেনে এনে বলছেন, একই কাজ চীন করেছিল ২০০৩ সালে সার্স সংক্রমণ লুকাতে।মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার এই প্রতিবেদন সম্প্রতি সামনে এনেছে বিখ্যাত মার্কিন গণমাধ্যম নিউইয়র্ক টাইমস।

করোনা নিয়ে চীনের দায়িত্বজ্ঞান বিষয়ে ক্রমেই সুর চড়িয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। ১ লাখ ৭৯ হাজার মার্কিন নাগরিকের মৃত্যু এবং প্রায় ৫৮ লাখ নাগরিকের আক্রান্ত হওয়ার ঘটনায় চীনকে দোষী সাব্যস্ত করতেও ছাড়েননি ট্রাম্প। কিন্তু ট্রাম্প বিরোধীরা পাল্টা বলেছেন, ট্রাম্প প্রথম দিকে শি জিনপিংয়ের করোনা মোকাবিলার ভূয়সী প্রশংসা করছিলেন, ভোট আসতেই তার সুর বদলেছে।

এদিকে, মার্কিন গোয়েন্দা দফতর বলছে, গোপনীয়তাই ঘাতকের ভূমিকা পালন করেছে। এই প্রতিবেদন অনুযায়ী, এমনকি চীনা কমিউনিস্ট পার্টির সদস্যরা নিজেদের ভিতরেও মুক্তমনা হয়ে তথ্য আদান-প্রদান করেনি। চেপে গেছেন পরিসংখ্যান।

মার্কিন গোয়েন্দা বিভাগের এক কর্মকর্তার কথায়, ডিসেম্বরে সংক্রমণ শুরু হয়েছিল। পাল্লা দিয়ে বেড়েছে সংক্রমণ। অথচ তা নিয়ে প্রকাশ্যে চীন সরকার বিবৃতি দিল ফেব্রুয়ারিতে। দুই মাসের গোপনীয়তায় ততদিনে লাগামছাড়া জায়গায় পৌঁছে গিয়েছে সংক্রমণ। শি জিনপিংয়ের চীন সরকারও বুঝে গিয়েছে পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে গিয়েছে, এমনটাই মনে করছেন মার্কিন গোয়েন্দারা।

নিউজনাউ/এনএইচএস/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...