সাবেক ছাত্রলীগ নেতা লিমন অস্ত্র মামলায় গ্রেপ্তার

চট্টগ্রাম ব্যুরো: মধ্যরাতে বাসা থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সাইফুল আলম লিমনকে অস্ত্র আইনে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে বহিষ্কৃত লিমন নগরে কিশোরগ্যাং লিডার হিসেবে পরিচিত। এছাড়াও সে সিআরবিতে জোড়া খুন মামলার অভিযোগপত্রভুক্ত আসামি।

শুক্রবার দিবাগত রাত একটার দিকে নগরের মেহেদীবাগ এলাকার ইকুইটি টাওয়ারের বাসায় অভিযান চালিয়ে লিমনকে আটক করে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। সিএমপি সূত্রে জানা যায়, গত ১২ অক্টোবর আদালত প্রাঙ্গণে সুদীপ্ত হত্যা মামলার আসামি মোক্তারকে মারধরের মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়। সে স্বীকারোক্তি দেওয়ায় এই মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

সিএমপির মুখপাত্র মির্জা সায়েম মাহমুদ নিউজনাউকে বলেন, কিশোরগ্যাং নিয়ন্ত্রণসহ পর্দার আড়ালে থেকে সে চাঁদাবাজি করতো। তার বিরুদ্ধে আরো অনেক অভিযোগ ছিল। এতোদিন সে আত্মগোপনে ছিল। গতরাতে তাকে গ্রেপ্তারের পর জিজ্ঞাসাবাদে সে এক সহযোগির নাম বলে। তার দেওয়া তথ্যে আমরা বিদেশি অস্ত্রসহ সজল দাশকে গ্রেপ্তার করি। তাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলা হয়েছে। তাকে কিছুক্ষণের মধ্যে আদালতে সোপর্দ করা হবে।

সিএমপির উপ-কমিশনার (ডিবি-উত্তর) মুহাম্মদ আলী হোসেন বলেন, আদালত প্রাঙ্গণে সুদীপ্ত হত্যা মামলার আসামি মোক্তারকে মারধরের মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছিল সাইফুল আলম লিমনকে। জিজ্ঞাসাবাদে তার সম্পৃক্ততা পাওয়ায় সে মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ২৪ জুন সাইফুল আলম চৌধুরী লিমনকে ছাত্রলীগ থেকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হয়। তখন তিনি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ছিলেন।

২০১৩ সালের ২৪ জুন সিআরবি সাত রাস্তার সামনে যুবলীগের বহিস্কৃত নেতা হেলাল আকবর চৌধুরী বাবর ও তৎকালীন ছাত্রলীগ নেতা সাইফুল আলম লিমনের অনুসারীদের মধ্যে সংঘর্ষে যুবলীগের কর্মী সাজু পালিত (২৮) ও শিশু আরমান (৮) নিহত হয়। এ ঘটনায় করা মামলায় লিমনকে দ্বিতীয় প্রধান আসামি করে ৬২ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। সেসময়ও গ্রেপ্তার হয়ে কারাভোগ করেন লিমন। এরপর ২০১৫ সালের নভেম্বরে লিমন সর্বশেষ পিস্তল, তিনটি ওয়ান শুটারগান ও গুলিসহ লিমনকে গ্রেপ্তার করেছিল র‍্যাব-৭।

নিউজনাউ/পিপিএন/এনএইচএস/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...