Banner Before Header

বৃষ্টি-কাদা-পানিতেও থাকুন সতেজ

ষড়ঋতুর এই সময়টায় চলছে বর্ষাকাল ।   আর বর্ষাকাল মানেই স্যাঁতস্যাঁতে একটা ভাব ।

এবার বর্ষার সঙ্গে গরমটাও যেন একটু বেশিই! গরমের সঙ্গে রোদ, চিটচিটে ঘাম আর ধুলোময়লা, কাদাপানি প্রায়ই আমাদের বিব্রতকর অবস্থায় ফেলে। আর ফ্রেশ থাকা না গেলে অস্বস্তিতে পড়তে হয়। তাই বর্ষায় ফ্রেশ লুক পেতে নিজের দিকে রাখতে হবে একটু বেশি খেয়াল।

সাজে থাকুন সতেজ: রোদ-গরম যতই তীব্র থাকুক, নানা কাজে ঘরের বাইরে তো যেতেই হয়। আর বাইরে গেলে একটু না সাজলে কি চলে! তাই প্রথমেই ফেসওয়াশ দিয়ে ত্বক পরিষ্কার করে সানস্ক্রিন লাগিয়ে নিন। ৫ মিনিট পর ফেস পাউডার বা মিনারেল পাউডার মাখুন। চোখে একটু কাজলের ছোঁয়া আর ম্যাট লিপস্টিক দিন।

আরামদায়ক পোশাক: গরমে আরামের সঙ্গে স্টাইলের কথাটাও ভাবতে হবে। আরাম পেতে ভারী নকশার পোশাকের পরিবর্তে হালকা নকশার পোশাক পরুন। স্টাইলিশ লুক আনতে গুরুত্ব দিনে পোশাকের প্যাটার্নে। সুতি পোশাক শরীরকে ঠা-া রাখে। সুতি ছাড়াও এ তালিকায় থাকতে পারে লিনেন, কোটা প্রভৃতিও। রঙের ক্ষেত্রে বেছে নিন সাদা রঙ। সাদা রঙ শুধু তাপ শোষণ থেকেই বিরত রাখে না, বরং চোখের জন্যও এনে দেয় প্রশান্তি। তবে প্রতিদিন তো আর সাদা পরতে ভালো লাগবে না তাই এর সঙ্গে যোগ করতে পারেন হালকা ঘিয়ে, কফি, লেবু, নীল প্রভৃতিও।

ক্যাজুয়াল কিংবা ফরমাল: সারা দিনের জন্য ঘুরতে বের হওয়ার পরিকল্পনা থাকলে ক্যাজুয়াল পোশাক পরুন। স্লিভলেস কিংবা শর্ট স্লিভ টপস, কুর্তি, কামিজে ফ্যাশনের সঙ্গে বজায় থাকবে আরামও। রাতের দাওয়াতে যাওয়ার জন্য শাড়ির বিকল্প কিছুই নেই। না, গরম বলে এড়িয়ে যেতে হবে না! দাওয়াতে গেলে এর সঙ্গে ওয়াটার প্রুফ আইলাইনার লাগিয়ে নিন। গরমে মাশকারা গলে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই এড়িয়ে চলাই ভালো। সতেজ থাকতে আইশ্যাডো ও ব্লাশনও এড়িয়ে চলুন। তবে রাতে পার্টিতে পার্টি লুক আনতে বিবি ক্রিম ব্যবহার করতে পারেন।

বাঁধা চুল বা খোলা: চুলের বাঁধনটা এখন বাঁধাই থাক। অফিসে একটা হাতখোঁপা কিংবা বেণি করা যেতে পারে। সালোয়ার-কামিজের সঙ্গে পনিটেইল কিংবা খেজুর বেণিও ভালো লাগবে। অনুষ্ঠানে খোঁপা কিংবা বেণিটা একটু ফন্টসেটিং করে তাতে সুন্দর কোনো কাঁটা কিংবা ফুল গুঁজে দিতে পারেন। তাই বলে খোলা রাখা যাবে না একেবারে তা কিন্তু নয়। রিবন্ডিং করা থাকলে চুল ছাড়াই ভালো। তবে গরমে চুল একটু গোছানো, পরিপাটি হলে ভালো লাগে।

ঘরে ফিরে কি করবেন: দিনশেষে বাসায় ফিরে ভালোভাবে ত্বক পরিষ্কার করতে হবে। মেকআপ তোলার জন্য জলপাই তেল ও পানি একসঙ্গে মিশিয়ে ম্যাসাজ করুন। এরপর ফেসওয়াশ দিয়ে মুখে ধুয়ে শসা ও টকদই মিশিয়ে ত্বকের লাগিয়ে রাখুন। ২ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এ ছাড়া মুখ ধোয়ার পানিতে দু-এক ফোঁটা গোলাপজল মিশিয়ে নিন, সতেজ অনুভূতি হবে।

বিউটি বাথ: রাতে ঘুমানোর আগে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে গোসল সের নিন। সারা দিনের ক্লান্তি নিমিষেই হারিয়ে গিয়ে আপনি হয়ে উঠবেন একদম ফ্রেশ। সপ্তাহে অন্তত একদিন সৌন্দর্য স্নান বা বিউটি বাথ নিন। ঠাণ্ডা পানিতে বিভিন্ন ফুলের পাপড়ি, দুধ, নিমপাতা প্রভৃতি মিশিয়ে করতে পারেন এই বিউটি বাথ। বিউটি বাথ শরীর ও মনে প্রশান্তি আনে। দূর হবে ক্লান্তি।

স্বাস্থ্যকর খাবারদাবার: এই গরমে সতেজ ও সুস্থ থাকতে মৌসুমি ফল, ফলের জুস পান করুন। ফল ইলেকট্রোলাইট ও ফ্লাইডের একটি উৎকৃষ্ট উৎস। বেশি বেশি বিশুদ্ধ পানি পান করুন। পানির পাশাপাশি ডাবের পানি, দুধ, স্যুপ, লেবুর শরবতও খেতে চেষ্টা করুন। ভারী গুরুপাক খাবারের পরিবর্তে লাউ, চালকুমড়া, পেঁপে, শসাজাতীয় সবজি, সালাদ, মাছ ও ডাল রাখুন খাবারের মেন্যুতে।

সারাদিন থাকুন ফুরফুরে: বাইরে বের হওয়ার অন্তত ১৫ মিনিট আগে সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন। সারা দিন বাইরে ঘোরাঘুরি করলে কিছুক্ষণ পরপর ভেজা টিস্যু দিয়ে মুখটা মুছে ফেলুন। ঘামের সঙ্গে শরীর থেকে প্রচুর পানি বেরিয়ে যায়। তাই এই দিনে ঘোরাঘুরিতে বেশি করে পানি পান করুন। আর সঙ্গে রাখুন ছাতা ও সানগ্লাস। ফ্যাশনাবল হ্যাটও হতে পারে আপনার রোদের সঙ্গী।

Leave A Reply

Your email address will not be published.