Banner Before Header

হতাশার সাগরে মেসির আর্জেন্টিনা

পারলো না আর্জেন্টিনা। পারলেন না লিওনেল মেসি। কোটি ভক্তকে কাঁদিয়ে বিদায় নিতে হলো এবারের বিশ্বকাপের আসর থেকে। আর্জেন্টিনাকে ৪-৩ গোলে হারিয়ে বিশ্বকাপের শেষ আটে উঠে গেলো তারুণ্যনির্ভর ফ্রান্স। আবারো চমক দেখালো জিদানের উত্তরসূরিরা।
পুরো খেলায় মাঠে দাঁড়াতেই পারেনি মেসিরা। ১৩ মিনিটে পেনাল্টি পেয়ে যায় ফ্রান্স। সুফলও ঘরে তুলে নিতে ভুল করেননি গ্রিজম্যান।পরে অবশ্য সমতায় ফেরান ডি মারিয়া। ৪১ মিনিটে আর্জেন্টাইন শিবিরে স্বস্তি ফিরে আসে।প্রথমার্ধ শেষ হয় ১-১ সমতায়।

নাটকীয় অপেক্ষা করছিল দ্বিতীয়ার্ধে কে জানতো! ফিরেই তিন মিনিটের মাথায় দুর্দান্ত এক গোল করে বসেন মারাকদো। পিছিয়ে থাকা মেসিরা এগিয়ে যায় ২-১ গোলে।
ম্যাচের ৫৭-৬৮- এই ১১ মিনিটে আর্জেন্টিনার জালে তিন গোল! এমবাপ্পে করেন চোখ ধাঁধানো ২ গোল।৪ মিনিটের ব্যবধানে করে বসেন ২ গোল। আর্জেন্টাইন রক্ষণভাগের দুর্বলতা চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দেন এমবাপ্পে। ৯০ মিনিটের খেলা শেষ। বাকি অতিরিক্ত সময়। নাটকীয়তা তখনও। আগুয়েরো শেষ বাঁশি বাজার আগেই হেড থেকে আরেকটি গোল করে বসেন। কিন্তু তখন সময় শেষ। আগুয়েরোর এই গোল শুধু পরাজয়ের ফারাকটা কমিয়েছে।
মেসি ভক্তরা এবার হতাশ হয়েছেন। শোকের সাগরে ভাসছেন। হয়তো নতুন আশায় বুক বাঁধছেন ২০২২ সালে কাতার বিশ্বকাপে মেসি এনে দেবেন স্বপ্নের শিরোপা। ততদিনে লিওনেল মেসি খেলবেনতো!?

Leave A Reply

Your email address will not be published.