Banner Before Header

স্পেনে প্রবাসীদের ঈদ উদযাপন

সাহাদুল সুহেদ, স্পেন থেকে

আনন্দ উৎসব আর ধর্মীয় ভাব গাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে ইউরোপের অন্যান্য দেশের মতো স্পেনেও ঈদ উল ফিতর উদযাপন হয়েছে।
স্থানীয় সময় শুক্রবার স্পেনে বসবাসরত মুসলমান প্রবাসী বাংলাদেশিরা তাদের প্রধান এ ধর্মীয় উৎসব নিজেদের মধ্যেই ভাগাভাগি করে নেন।
রাজধানী শহর মাদ্রিদ, পর্যটন নগরী বার্সেলোনাসহ স্পেনের বিভিন্ন শহরে ছড়িয়ে থাকা প্রবাসী বাংলাদেশিরা ঈদের নামাজ আদায়, একে অপরের বাসায় গিয়ে ঈদের কুশলাদি বিনিময় করেন। তবে স্পেনে ঈদের দিন সরকারী ছুটি না থাকায় নামাজ আদায় করেই অনেককেই কাজে ছুটতে দেখা গেছে।


স্পেনের সবচেয়ে বড় মসজিদ ভেনতাস ইসলামিক সেন্টার মসজিদে সকাল ৮টায় ঈদের বৃহত্তম জামাত অনুষ্ঠিত হয়। স্পেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হাসান মাহমুদ খন্দকার, কমার্শিয়াল কাউন্সিলর মোহাম্মদ নাভিদ শাফিউল্লাহ, প্রথম সচিব (শ্রম) শরিফুল ইসলাম এ জামাতে নামাজ আদায় করেন।
মাদ্রিদে বাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকা লাভাপিয়েসের বায়তুল মুকাররম বাংলাদেশি মসজিদ পরিচালনা কমিটির আয়োজনে পার্কে কাসিনোর খোলা ময়দানে সকাল সাড়ে ৭টায় এবং সাড়ে ৮টায় দুইটি জামাত অনুষ্ঠিত হয়। জামাত দু‘টিতে বাংলাদেশের পাশাপাশি পাকিস্তান, মরক্কো, সেনেগাল, আফগানিস্তানসহ বেশ কিছু দেশের প্রায় ৭ হাজার অভিবাসী মুসল্লী অংশগ্রহণ করেন। উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বাংলাদেশি মহিলারাও ঈদের নামাজ পড়েন। নামাজ শেষে বিশেষ মোনাজাতে মুসলিম উম্মাহ’র সুখ ও সমৃদ্ধি কামনা করা হয়।


কাসিনো পার্কে ঈদের নামাজ আদায় করেন স্পেনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের দূতালয় প্রধান এম হারুণ আল রাশিদ।
ঈদের নামাজকে কেন্দ্র করে হাজারো প্রবাসী বাংলাদেশির মিলনমেলায় পরিণত হয় কাসিনো পার্ক ও এর আশপাশ। বাংলাদেশিরা একে অপরের সাথে ঈদের কোলাকুলি ও কোশলাদি বিনিময় করেন।
পর্যটন নগরী বার্সেলোনায় বাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকা রাভালে শাহ জালাল জামে মসজিদে অনুষ্ঠিত ঈদের ৩টি জামাতেই ছিল প্রবাসী বাংলাদেশিদের উপচে পড়া ভিড়। ঈদের নামাজের দু‘টি জামাত (সকাল পৌনে ৭টা ও সোয়া ৮টা) মসজিদে এবং একটি জামাত (সকাল ৭টা ২০মিনিটে) মসজিদ সংলগ্ন খালি ময়দানে আয়োজন করে মসজিদ পরিচালনা কমিটি। এছাড়াও লতিফিয়া ফুলতলী জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৬টা ৫০ মিনিট, সাড়ে ৭টা ও ৮টায় ঈদের নামাজের ৩টি জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.